আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭২ তম জন্মদিন পালনোপলক্ষে শেখ হাসিনা জন্মোৎসব উদযাপন পরিষদ দু’দিনব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। এ উপলক্ষে আজ সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে জন্মোৎসব আয়োজন সম্পর্কে বলা হয়। শেখ হাসিনা শুধুমাত্র একজন ব্যক্তিই নন, বাঙালি জাতিসত্তার অতন্দ্র প্রহরী। সর্বোপরি তিনি এমন একজন মহীয়সী নারী, যিনি একজন সফল রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে বিশ্বনন্দিত। বিশ্বব্যাপী মানবিক সত্তার উন্মোচন এবং সামাজিক শক্তির বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি, বহুমাত্রিক সম্মান ও অভিধায় অভিষিক্ত হয়েছেন। তাই তাঁর শুভ জন্মদিন বাঙালি জাতির আরেকটি আনন্দঘন উৎসবের দিন। তাঁর মহান পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে যেমন বাংলাদেশের জন্ম হতো না, তেমন আজ থেকে ৭২‘র বছর আগে এই দিনে শেখ হাসিনার জন্ম না হলে বাঙালি ও বাংলাদেশ আলোকেরই ঝর্ণাধারায় উদ্ভাসিত হতো না। তাই এই দিনটি অত্যন্ত তাৎপর্যময়। কারণ তাঁর জন্মদিন সকল বাঙালির জন্য ‘ধন্য তব মানব জমিন’। সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয় যে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭২ তম জন্মদিন পালনোপলক্ষে আগামী ২৮ ও ২৯ সেপ্টেম্বর’১৮ (শুক্রবার ও শনিবার) দু’দিনব্যাপী বণার্ঢ্য আয়োজনে নানান অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছি। আগামী ২৮শে সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকাল ৯টায় নগর ভবন চত্বরে (চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সম্মুখে) কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। এ সময় শিশু-কিশোর সমাবেশ, জন্মদিনের কেক কাটা, বেলুন ও পায়রা উড়ানোর মধ্য দিয়ে দু’দিনব্যাপী কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং শেখ হাসিনা জন্মোৎসব উদযাপন পরিষদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক আ.জ.ম নাছির উদ্দীন। এই দিনে অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা। বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত মঞ্চে পরিবেশিত হবে একক সঙ্গীতানুষ্ঠান, দলীয় আবৃত্তি পরিবেশনা ও দলীয় নৃত্যানুষ্ঠান। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় অনুষ্ঠিত হবে ‘আলোকেরই ঝর্ণাধারায় ধরিত্রী নেত্রী শেখ হাসিনা’ শীর্ষক আলোচনা সভা। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন চট্টগ্রাম প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন। আলোচনা সভা শেষে রাত ৮টায় পরিবেশিত হবে দলীয় নৃত্যানুষ্ঠান ও বিশেষ সঙ্গীতানুষ্ঠান। ২৯ সেপ্টেম্বর শনিবার বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত একক সঙ্গীতানুষ্ঠান, দলীয়বৃন্দ আবৃত্তি ও দলীয় নৃত্যানুষ্ঠান পরিবেশিত হবে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় অনুষ্ঠিত হবে ‘ভেঙ্গেছ দুয়ার, এসেছ জ্যোর্তিময়’ শীর্ষক আলোচনা সভা। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বরেণ্য সাংবাদিক ও কবি অরুণ দাশগুপ্ত। প্রধান আলোচক থাকবেন সাউদার্ন ইউনিভার্সিটির মাননীয় উপ-উপাচার্য অধ্যাপক প্রকৌশলী আলী আশরাফ। আলোচনা সভা শেষে রাতে পরিবেশিত হবে দলীয়বৃন্দ আবৃিত্ত, দলীয় নৃত্যানুষ্ঠান, বিশেষ সঙ্গীতানুষ্ঠান ও চট্টগ্রামের আলোকিত মরমী সঙ্গীত পরিবেশনা। সংবাদ সম্মেলনে শেখ হাসিনার ৭২ তম জন্মদিন পালনোপলক্ষে শেখ হাসিনার জন্মোৎসব উদযাপন পরিষদ স্ব স্ব ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার জন্য দেশের ৬ জন মহীয়সী নারীকে শেখ হাসিনা সম্মাননা স্মারক প্রদান করার ঘোষণা দেয়া হয়। এই ৬জন মহীয়সী নারী হলেন সমাজসেবায় ডা. আনজুমান আরা বেগম, শিক্ষায় প্রফেসর ড. শিরীন আক্তার, সাংবাদিকতায় ডেইজী মওদুদ, মুক্তিযোদ্ধা ও শব্দসৈনিক হিসেবে শিল্পী জয়ন্তী লালা, সংস্কৃতিতে বাচিক শিল্পী মিলি চৌধুরী ও নৃত্যকলাকার শুভ্রা সেন গুপ্ত। সংবাদ সম্মেলনে আরো ঘোষণা করা হয় যে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭২ তম জন্মদিন পালনোপলক্ষে আমাদের এই আয়োজন মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের সন্তানদের প্রতি নিবেদিত হল। এ আয়োজনে মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তানদের অংশগ্রহণ করার জন্য আবেদন জানিয়ে বলা হয় একই সাথে চট্টগ্রামের সকল দেশপ্রেমিক নাগরিক ও নতুন প্রজন্মের সন্তানদের এই অনুষ্ঠানে শরিক হয়ে বীর বাঙালি ও আলোকোজ্জ্বল বাংলাদেশে সফল কা-ারী শেখ হাসিনার জীবন ও কর্মকে শ্রদ্ধা ও সম্মানের সাথে ধারণ করার জন্য আহ্বান জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন শেখ হাসিনা জন্মোৎসব উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক শেখ মাহমুদ ইছহাক। লিখিত বক্তব্য প্রস্তাবের আগে এই আয়োজনে ভূমিকা পাঠ করেন উদযাপন পরিষদের সমন্বয়ক ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আয়োজক পরিষদের উপদেষ্টা ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নঈম উদ্দিন চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা মো: ইসা, চট্টগ্রাম চেম্বার অব কর্মাস এর পরিচালক ও আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দ ছগির আহমেদ, আয়োজক পরিষদের সদস্য সচিব ফারক আহমেদ, প্রধান সমন্বয়কারী এম এ মান্নান শিমুল, সাংস্কৃতিক সংগঠক আ ফ ম মোদাচ্ছের আলী, শওকত আলী সেলিম, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য পুলক খাস্তগীর, কবি সজল দাশ প্রমুখ।